কৌশিক, লেখক ও কবি নাসরিন সিমি

প্রকাশ : মে ২৫, ২০১৯, ৪:৫৫ অপরাহ্ণ

নাসরিন সিমি

দুবাইয়ের শপিং মলে আংটিটা দেখেই সাথে সাথে সিদ্ধান্ত নিয়ে নেয় কৌশিক। দ্বিতীয়বার কোন চিন্তা না করেই কিনে নেয় আংটিটা। পরের দিন ঢাকায় এসে পৌছে সে। এয়ারপোর্ট থেকে নিজের ফ্লাটে পৌছতে পৌছতে রাত দুটো বাজে।

এতো রাতে কী সুতন্নীকে ফোন দেয়া ঠিক হবে!! না কাল সকালে ফোন দিয়ে বলবো আমি ঢাকায়। তাছাড়া গত মাসখানেক ধরে যে তিক্ততা তৈরি হয়েছিল ওর সাথে সেটা সামনাসামনি দেখা করে ডিসিশন জানিয়ে ওকে আংটিটা গিফট দিতে হবে।

সুতন্নীর হাজবেন্ড মারা যাওয়ার পর একমাত্র মেয়েকে নিয়ে মায়ের সাথে থাকে। একটা বেসরকারি ব্যাংকে জব করে। দেখতে সুন্দরী। বেশ অল্প বয়সে ওর থেকে বয়সে বড় এমন এক পাত্রের সাথে বিয়ে হয় সুতন্নীর এস এস সি পরীক্ষা পাস করার পরেই। তারপর মেধার জোরেই নিজের প্রচেষ্টার ফলে পড়াশোনার শেষ করে আজ এই ব্যাংকে কাজ করছে।

কৌশিক একা। পাঁচ বছর আগে বিয়ে করেছিল মাহীকে। বিয়ের পর কিছুদিন সুখেই কাটছিলো কিন্তু হঠাৎ করেই একটা সমস্যা এসে সুখের মধ্যে কাঁটা হয়ে যায়। মাহী নেশাগ্রস্ত ছিলো। প্রচন্ড রকম ভাবে হ্যালুশিনেশন এ ভুগতো। সারাদিন মনের ভেতর মনগড়া কাল্পনিক গল্প ফেঁদে সেটা সত্যি মনে করে অশান্তি করতো। চিৎকার চেঁচামেচি শুরু করে দিতো। পরিবারের সবার উপদেশ মতো একটা বাচ্চা নেয়ার পরেও ঠিক হয়নি মাহী।

কৌশিক মনে মনে আতংকিত হয়ে পড়ছিলো তাদের ছেলের ভবিষ্যত নিয়ে। মাহী র বাবা মায়ের সাথে কথা বলার পর তাঁরা মাহীকে চিকিৎসার ব্যবস্থা করে আর ছেলে আদি কে লালন পালন করতে নিয়ে যায় তাদের কাছে ।সেই থেকে কৌশিক একা।

বছর খানেক আগে সুতন্নীর সাথে পরিচয়। তারপর ঘনিষ্ঠতা হয় জানাশোনা হয় দুজনের মাঝে। সুতন্নী কোনদিন বিয়ের জন্য কৌশিক কে জোর করেনি কিন্তু কৌশিকের বাবা মা প্রচন্ড জেদাজেদি করছিলো ছেলের সাথে। ছেলের ঘরের প্রতি মায়া নেই।সারাদিন ব্যবসার কাজে দেশ বিদেশে ঘুরে বেড়ায়। ছেলেকে সংসারে মন বসানোর জন্য তাদের এই জোর প্রচেষ্টা।

দুবাইয়ে আংটিটা দেখেই সাথে সাথে সিদ্ধান্ত নিয়ে নেয় কৌশিক এবার সুতন্নীকে বিয়ের কথা বলবে। তাছাড়া অনেক অনেক দিন ধরে এই একাকী বিছানায় শুয়ে থাকতে থাকতে তার নিজের মধ্যেই বিয়ের বিষয়ে আগ্রহ জন্মেছে আবার নতুন করে।

গ্রীনরোডে সুতন্নীর ফ্লাটে সন্ধ্যায় পৌছে যায় কৌশিক। সুতন্নীকে খুব সুন্দর লাগছে আজ। একটা ট্রেতে করে প্লেটে কিছু কেক এক বাটি চাউমিন আর কফির পট নিয়ে আসে নিজেই। কৌশিকের হাতে চাউমিন তুলে দেয়। নাস্তা খেয়ে কফি শেষ করে পকেটে হাত দেয় কৌশিক আংটিটা স্পর্শ করে। সুতন্নীকে হাত ধরে কাছে টেনে এনে পাশে বসায়। ছোট্ট করে একটা চুমু খায় কপালে। শরীর হালকা শিহরিত হলেও সুতন্নী চুপচাপ বসে থাকে। কৌশিক একহাতে সুতন্নীর হাত ধরে থাকে। অন্য হাতটা পকেটের ভেতরে ছোট্ট বক্সটা চেপে ধরে আছে বের করবে বলে।
আংটি টা পকেট থেকে বের করতে না করতেই আচমকা অন্য পকেটে মোবাইল ফোন বেজে উঠলো। সুতন্নীর হাত ছেড়ে দিয়ে কৌশিক মোবাইল ফোনে হাত রাখে।

হ্যালো কৌশিক সাহেব বলছেন? অপরিচিত মানুষের কন্ঠস্বরে প্রথমে একটু অবাক হয়ে যায়।

হ্যাঁ কে বলছেন?

নিউ মুক্তি ক্লিনিক থেকে বলছি। আপনার সাথে একজন কথা বলতে চাইছেন।

জ্বি দিন।

কৌশিক আমি মাহী। তুমি কেমন আছো? বাবু কেমন আছে ? এক বছর হয়ে গেছে তুমি আমাকে দেখতে আসোনি । প্লিজ কৌশিক একবার এসো। তোমাকে আমার খুব দেখতে ইচ্ছে করছে।

আচ্ছা আমি আসবো মাহী।বলে একটা দীর্ঘশ্বাস ছেড়ে ফোন কেটে দেয়। হঠাৎ ফোন পেয়ে থমকে যায় কৌশিক। নিজের ভেতরে বাঁধা অনুভব করে।
কৌশিক আংটি টা পকেটেই রেখে দেয়। সুতন্নীর ফ্লাট থেকে বের হয়ে আসতে আসতে রাস্তায় দাঁড়িয়ে একটা সিগারেট ধরায়। ড্রাইভার গাড়ি নিয়ে সামনে আসতেই দরজা খুলে ভেতরে বসে।

স্যার এখন কোথায় যাবেন??

ড্রাইভারের কথায় কৌশিক চমকে উঠে। কৌশিকের আজ নিজের দামী গাড়ি হয়েছে। মনে পড়ে একদিন এক বন্ধু তাঁকে গাড়ি থেকে নেমে যেতে বলেছিলো তার দূরবস্থা আর বেকারত্বের জন্য। আজ কৌশিক একজন সফল ব্যবসায়ী। নিজের ফ্ল্যাট গাড়ি অফিস সবই আছে। তবুও ফাঁকা ঘরে নারীর অভাব তাঁকে চব্বিশ ঘণ্টা ঘিরে ধরে। মাঝে মাঝে মনে হয় সবকিছু ছেড়ে দিয়ে লম্বা একটা মৃত্যুঘুম দেয়।
ড্রাইভার আবার জিজ্ঞেস করে স্যার এখন কোথায় যাবেন
বাস্তবে ফিরে এসে কৌশিক বলে ‘ চলো হোটেল লা মেরিডিয়ান এ যেতে হবে। একটা বিজনেস মিটিং আছে। ফরেন ডেলিগেটস ওয়েট করছে।

কৌশিক মনে মনে বলে ‘ জীবনে এতো অপেক্ষা কেন? অপেক্ষার আরেক নাম কি আশা! আমরা সবাই সেই কাঙ্খিত কোন কিছুর আশায় জীবনের প্রতিটি মুহুর্তে প্রতিটি সময়ে আমরা কারো না কারো জন্য অপেক্ষা করে আশা নিয়ে বেঁচে থাকি।

 



সর্বশেষ সংবাদ
স্বরূপকাঠীতে পয়ঁত্রিশজন জুয়াড়ী আটক “শিশির ভেজা রাত” রওশন কবীর নেছারাবাদে(স্বরূপকাঠী) কমিউনিটি পুলিশিং ও ওপেন হাইজ-ডে অনুষ্ঠিত বরগুনায় কোচিং বানিজ্য বন্ধে নেই কোনো পদক্ষেপ স্বরূপকাঠীতে  লবন মজুদের জন্য ভ্রাম্যমান আদালত- বিশ হাজার টাকা জরিমানা রিফাত হত্যা : প্রাপ্তবয়স্ক ১০ আসামির বিরুদ্ধে চার্জ গঠন ২৮ নভেম্বর। তিন আসামির জামিন নামঞ্জুর স্বরূপকাঠীতে বুলবুলের আঘাতে বসত ভিটা কেড়ে নিল আবু হানিফের মরণফাঁদ দিয়ে উঠতে হয় খেয়া পারাপারে , অতিরিক্ত টাকা নিচ্ছে যাত্রীদের থেকে!! বরগুনা রিফাত হত্যা : প্রধান আসামির স্বীকারোক্তি প্রত্যাহারের আবেদন বরগুনায় অভিমানে পুত্রবধুর আত্নহত্যা