#
নেছারাবাদ(স্বরূপকাঠী) থানার ওসি’র তৎপরতায় নড়েচড়ে বসে মাদক ব্যবসায়ীসহ সেবিকারা
জুন ২৪, ২০১৯, ৫:২২ অপরাহ্ণ

সংবাদ প্রতিদিন২৪.কম
পিরোজপুরের নেছারাবাদ(স্বরূপকাঠী) থানার অফিসার ইনচার্জ কেএম তরিকুল ইসলাম ( ওসি) এর তৎপরতায় মাদক নির্মূলের জোড়ালে প্রচেষ্ঠায় বিপাকে মাদক ব্যবসায়ীসহ বিক্রেতা। প্রতিদিন সমগ্র উপজেলার প্রতিটি ওয়ার্ডে পুলিশি অভিযানে মহা বিপাকে পরেছে মাদক বিক্রেতাসহ সেবনকারীরা। একের পর এক ধরা পরে যাচ্ছে গড ফাদার ও তার শিষ্যরা। এরই মধ্যে সমগ্র উপজেলার সচেতন মহল নেছারাবাদ ওসি তরিকুল ইসলামের এ অভিযানকে স্বাগত জানিয়েছেন। তারা বলেন, বর্তমান ওসি তার এ উদ্যোগ অব্যহত থাকলে অচিরেই নির্মূল হবে সমগ্র উপজেলা থেকে মাদক বিক্রয় ও সেবনকারী। তারা আরো বলেন, বাল্য বিবাহ ও ইফটিজিং এখন একেবারে শূন্য কোঠায়। দিনরাত অক্লান্ত পরিশ্রমে তাহার সংগীয় ফোর্স নিয়ে গোটা উপজেলায় যেভাবে টহল দিচ্ছে তাহাতে অন্যায় করার পূর্বে একশতবার ভেবে দেখবে এর পরিনতির কথা।
কিন্তু অফিসার ইনচার্জ কেএম তরিকুল ইসলাম(ওসি) এর সুনামকে ক্ষুন্ন করার জন্য মিথ্যা সংবাদ প্রকাশ করে। গত ২৪/০৬/১৯ইং তারিখ ঢাকা থেকে প্রকাশিত একটি পত্রিকায় “পিরোজপুরের এবার কলেজ ছাত্রকে থানায় নিয়ে নির্যাতন” সংবাদ প্রকাশ করার পর উক্ত সংবাদের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান কলেজ ছাত্রে মা আসমা জাহান তুলি। তিনি বলেন, আমার ছেলের উপর থানায় কোন প্রকার পুলিশি নির্যাতন করা হয় নাই। যিনি উক্ত সংবাদ প্রকাশ করেছেন তিনি আমার পরিবারের সাথে মতামত না নিয়ে মনগড়া সংবাদ প্রকাশ করেছেন।
উপজেলার ভাইস চেয়ারম্যান রনি দত্ত জয় বলেন, বর্তমানে নেছারাবাদ(স্বরূপকাঠী) থানার অফিসার ইনচার্জ আসার পর গোটা উপজেলার সাধারণ মানুষেরা সস্তিতে চলাফেরা করিতে পারে। আমার প্রিয় সংগঠন বাংলাদেশ ছাত্রলীগ স্বরূপকাঠী শাখার আমি সভাপতি হিসাবে এটুকু বলতে পারি বর্তমান ওসি’র অভিযান অব্যহত থাকলে অচিরেই এমন ভাবে বন্ধ হবে এবং মাদক বিক্রয় এবং সেবনকারী খুজে পাওয়া যাবেনা। আর উপজেলা পরিষদ থেকে এব্যাপরে সর্বাক্তক সহযোগীতা করা হবে। স্বরূপকাঠী পৌর যুবলীগ সভাপতি শিশির কর্মকার বলেন, নেছারাবাদ থানার অফিসার ইনচার্জ যোগদান করার পর মাদকের সাথে জড়িতদের কোন প্রকার ছাড় দেইনি তিনি। পৌরসভার প্রতিটি ওয়ার্ডে মাদক, বাল্য বিবাহ, ইফটিজিংসহ সমাজের নানা ক্ষতিকারক বিষয়ের উপর সভা সমাবেশ করেন। এর ফলে ইফটিজিংসহ মাদক ব্যবসায়ী ও সেবনকারীরা ভাল হবার সুযোগ পেয়েছে। বর্তমান ওসি স্যারের এ অভিযান অব্যহত থাকলে স্বরূপকাঠী একটা মাদকমূক্ত মডেল থানায় রুপান্তরিত হবে। নেছারাবাদ থানার অফিসার ইনচার্জ কেএম তরিকুল ইসলাম বলেন, সমাজ থেকে বাল্য বিবাহ, ইফটিজিং, মাদক বিক্রয়কারী ও সেবনকারীদের বিরুদ্ধে সর্বদাই জিহাদ করে যাব। কোন প্রকার ছাড় পাবেনা তারা যত বড় শক্তিশালী লোক হোক। আমি এব্যাপারে অত্র উপজেলার সকলের সহযোগীতা কামনা করি।