• slide news
  • »
  • স্বরূপকাঠিতে গ্রামীন কল্যাণ স্বাস্থ্য কেন্দ্রেমোবাইল ফোনের মাধ্যমে ডেলিভারী করানো হয়

স্বরূপকাঠিতে গ্রামীন কল্যাণ স্বাস্থ্য কেন্দ্রেমোবাইল ফোনের মাধ্যমে ডেলিভারী করানো হয়

প্রকাশ : নভেম্বর ২২, ২০১৮, ১০:৪৭ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিনিধি। স্বরূপকাঠি উপজেলার নান্দুহার গ্রামের গ্রামীন স্বাস্থ্য কল্যাণ কেন্দ্রে ১বছরের প্যারামেডিকেল প্রশিক্ষণ প্রাপ্ত লোক দিয়ে চলছে প্রসূতি রোগীদের ডেলিভারী কার্যক্রম। গ্রামীন স্বাস্থ্য সেবায় নিয়োজিত এ প্রতিষ্ঠানটি সরকারি সকল ছুটি মেনেই বন্ধ থাকে কিন্তু ডেলিভারী সংক্রান্ত কোন রোগী এলেই ছুটে আসেন ঝুমুর নামের স্বাস্থ্য সহকারি কাম ডেলিভারী ম্যান। রয়েছে ৫জন ক্লাইন্ট কনভেঞ্চ ম্যান। যারা স্বস্ব এলাকার রোগীদের বুঝিয়ে নিয়ে আসেন তাদের নান্দুহার কেরানিবাড়ির এই স্বাস্থ্য কেন্দ্রে ডেলিভারী প্রতি কমিশন পান ১৫০ টাকা এবং মাসিক ৬০০০ টাকা বেতন। রয়েছেন ল্যাব টেকনোলজিস্ট, মেডিসিন কর্নার, এবং একজন ডিপ্লোমা ইন মেডিকেল ফ্যাকাল্টি(ডিএমএফ) চিকিৎসক জিনি ডাক্তার পরিচয়ে এই পতিষ্ঠানের প্রধান কর্তা। ডেলিভারী চচার্য ১৫০০ টটাকা এবং ঔষধ অভিযোগ ররয়েছে ঔষধে বাড়তি দাম আদায়ের। সম্প্রতী রুপালী নামের এক প্রসূতিরোগীর আল্ট্রাসনোগ্রাম রিপোর্ট নিয়ে বিতর্কে জড়িয়েছে এই প্রতিষ্ঠানটি। রিপোর্ট অনুযায়ী ডেলিভারী তারিখ ১১/১২/২০১৮ এবং বাচ্চার বয়স ৩৬ সপ্তাহ ১ দিন হলেও ১৭/১১/২০১৮ তারিখ রোগী অসুস্থ হয়ে পড়ে। এসময় সুটিয়াকাঠির সততা প্রাঃক্লিনিকে আসলে পূনরায় আল্ট্রাসনোগ্রাম করা হলে দেখা যায় তার বাচ্চা ডেলিভারীর সময় অতিক্রম প্রায় এবং গর্ভের বাচ্চা মল মূত্র ত্যাগ শেষ সেটাই খেয়ে নিয়েছে। যে কারণে কিছুটা বিভ্রান্ত হন চিকিৎসকরা। পরিবার ঝুকি নিয়েই অপারেশন করান রূপালীর। এব্যাপারে সততা ক্লিনিকের এমডি গোলাম মোস্তফা বলেন, ভূল রিপোর্টের কারণে রোগী বিভ্রান্ত হয় এবং সঠিক সময় ডাক্তারের স্মণাপন্য হতে পারেনি তাই অনেকটা রিক্স নিয়ে ডাক্তার রেজাউল করিম তার অপারেশন করেছেন। বাচ্চার অবস্থা তেমন ভাল নয়। এব্যাপারে গ্রামীন কল্যান স্বাস্থ্য কেন্দ্রের আরএমও   বলেন, রিপোর্ট ভুল হতেই পারে! রোগী তো আর মারা যায়নি! এখানে সমস্যা কি? হাতুড়ে চিকিৎসক দিয়ে ডেলিভারীর করানোর ব্যাপারে তিনি বলেন, গ্রামের দাইরা করতে পারলে এরা কেন পারবে না? নিয়ম অনুযায়ি ঝুমুর ডেলিভারী করতে পারে না কিন্তু সে গাইনী ডাক্তারের সাথে মোবাইলে যোগাযোগ রেখেই বাড়িতে বাড়িতে গিয়ে ডেলিভারী করে আসে। কিন্তু এলাকাবাসীর অভিযোগ এখানে টাকার বিনিময় অপকর্মের বাচ্চা নষ্ট করা হয় যা রেজিস্ট্রার ভূক্ত করা হয় না। এব্যাপারে অত্র প্রতিষ্ঠানের রেজিস্টার খাতায় দেখা যায় বেশির ভাগ ১৮ বছর বয়সী যুবতীদের ডেলিভারী করা হয়েছে এবং অনেকের স্বামীর নাম নেই। এব্যাপারে ডেলিভারী ম্যান ঝুমুর জানায়, রোগীর স্বযন ডাকলেই আমরা যাই এবং ডেলিভারী করার মত হলে গাইনী ডাক্তারের সাথে মোবাইলে পরামর্শ ক্রমে ঔধষ দেই ও ডেলিভারী করি। কিন্তু আরএমও’র দাবী সে(ঝুমুর) যেলিভারী করতে পারবে না। এব্যাপারে রূলীর স্বামী জানায়, আমি সামান্য রংমিস্ত্রী, ডগে কাজ করি। ভুলের কারণে বাচ্চার যে অবস্থা তাতে অনেক টাকা বাড়তি খরচ হচ্ছে যা আমার পক্ষে যোগান দেয়া অসম্ভব প্রায়! ধার দেনা করে চিকিৎসা খরচ চালাতে হচ্ছে।

 



সর্বশেষ সংবাদ
বেতাগী চান্দখালীতে গাজাঁ সহ আটক ১ মঠবাড়িয়ায় কলেজ ছাত্রীকে ব্লেড দিয়ে আহতের মামলার প্রধান আসামী দুলাল গ্রেফতার স্বরূপকাঠি পৌর স্বেচ্ছাসেবক লীগের রাজনীতিতে উজ্জ্বল নক্ষত্র সিফাত উল্লাহ নেছার স্বরূপকাঠীতে "৭১ বাংলা অনলাইন টিভির" দুই কথিত সাংবাদিক ইয়াবা সহ আটক কথা রাখলেন পিরোজপুর পুলিশ সুপার, ১০৩ টাকায় দিলেন কনস্টেবল পদে চাকরি বরগুনায় রিফাত হত্যাঃ দেশব্যাপি অভিযান মঠবাড়িয়ায় যুবলীগ নেতাকে কুপিয়ে হত্যার চেষ্টা বাংলাদেশের সীমান্তে রেড এ্যালার্ট জারী নেছারাবাদ(স্বরূপকাঠী) থানার ওসি’র তৎপরতায় নড়েচড়ে বসে মাদক ব্যবসায়ীসহ সেবিকারা কবি নাসরিন সিমি /একগুচ্ছ কবিতা/ঈশ্বরের হোলি খেলা/ভালো আছি সর্বনাম/দোয়েল পাখির কাব্য/গন্ধরাজ ও ঝড়ের কাব্য/অন্ত্যমিল আছে আমাদের